প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, কবি ও শিল্পীদের এবং তার পরিবার ও আত্মীয়স্বজনদের সম্মানে তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন লনে ইফতারের আয়োজন করেন।

প্রধানমন্ত্রী বুধবার বিকেল ৬টা ১০ মিনিটে ইফতার অনুষ্ঠানস্থলে আসেন এবং অতিথিদের বিভিন্ন টেবিল ঘুরে ঘুরে তাদের সাথে কুশল বিনিময় করেন।

ইফতারের আগে জাতির শান্তি,অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি কামনা করে এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ১৫ আগস্টে শাহাদৎ বরণকারী অন্যান্যদের আত্মার শান্তি কামনা এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দীঘার্য়ু ও সুস্বাস্থ্য কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের পেশ ইমাম মুফতি মাওলানা মহিউদ্দিন কাশেমি মুনাজাত পরিচালনা করেন।

ইফতারে অন্যান্যের মধ্যে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, আওয়ামী লীগ উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ, এলজিআরডি ও সমবায় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর, ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম, ড. হাসান মাহমুদ এমপি, শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি, হাবিব-ই-মিল্লাত এমপি, নুর-ই-আলম লিটন চৌধুরী এমপি, কাজী রোজী এমপি, শেখ কবির হোসেন যোগ দেন।

এ ছাড়াও এ্যাটর্নি জেনারেল এডভোকেট মাহবুবে আলম, অধ্যাপক ইমেরিটাস ড. আনিসুজ্জামান এবং ড. রফিকুল ইসলাম, জাতীয় বিশ্বদ্যিালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক হারুন অর রশীদ, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান, বিশিষ্ট অভিনেতা আব্দুর রাজ্জাক, হাসান ইমাম, রিয়াজ এবং শমি কায়সার, বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী হাশেম খান, সঙ্গীত শিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ, সামিনা চৌধুরী এবং ফাহিমা চৌধুরী, কবি রুবি রহমান, ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহ্সানুল করিম, ফরিদুর রেজা সাগর, শাইখ সিরাজ, নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট আফজাল হুসাইনও ইফতারে যোগ দেন।

সূত্র : বাসস