সম্মেলনে যোগ দেওয়ার ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের পথেই হাঁটলো বিএনপি। আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলনে বিএনপির কোনো প্রতিনিধি যোগ দেননি। কাউন্সিলে অংশ নেওয়ার জন্য দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দাওয়াত দেওয়া হয়েছিল।

এর আগে চলতি বছরের ১৯ মার্চ রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউটে অনুষ্ঠিত বিএনপির জাতীয় কাউন্সিলে আওয়ামী লীগের কেউ অংশ নেননি। আওয়ামী লীগকে সম্মেলনে যোগ দেওয়ার জন্য বিএনপির পক্ষ থেকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল।

এদিকে শনিবার (২২ অক্টোবর) রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শুরু হওয়া দুদিনের সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বে মহাজোটের শরিকসহ দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা যোগ দেন। সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন-সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্প ধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, মহাসচিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নান, বাংলাদেশ জাতীয় জোটের প্রধান ও সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা, সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, মহাজোটের শরিক ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু, সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার, জাসদ (রব) সভাপতি আ স ম আবদুর রব, জাতীয় পার্টি (জেপি) মহাসচিব শেখ শহীদুল ইসলাম, তরিকত ফেডারেশনের সভাপতি নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সাবেক সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান খান ও বর্তমান সভাপতি মুজাহিদুল সেলিম প্রমুখ।

এ ছাড়া সম্মেলনে চীন, ভারত, রাশিয়া, কানাডা, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, ইতালি, শ্রীলঙ্কা, নেপালসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের রাজনৈতিক দলের নেতারা এ সম্মেলনে যোগ দেন।

তবে দেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপির কেউ এ সম্মেলনে যোগ দেয়নি। সম্মেলনে যোগ দেওয়ার জন্য ২০ অক্টোবর দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের হাতে আওয়ামী লীগের সম্মেলনের আমন্ত্রণপত্র পৌঁছে দেওয়া হয়। এতে সম্মেলনে যোগ দেওয়ার জন্য বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে আমন্ত্রণ জানানো হয়।

আওয়ামী লীগের সম্মেলনে আমন্ত্রণ প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল ইসলাম ওই সময় বলেছেন, আওয়ামী লীগের ২০তম সম্মেলনে উপলক্ষে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও আমাদেরকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য তাদের ধন্যবাদ জানাই। আমরা খুশি হতাম যদি তারা বিএনপির কাউন্সিলে আসতেন। দুঃখজনক হলেও সত্য তারা শুধু আসেন নাই তা নয়, তারা বিভিন্নভাবে বিএনপির কাউন্সিলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছেন।’

তবে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে যোগ দেওয়ার বিষয়ে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল শুক্রবার (২১ অক্টোবর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে যোগ দেওয়ার কথা বলেছিলেন। আমন্ত্রণ জানানো সত্ত্বেও আওয়ামী লীগের কেউ বিএনপির জাতীয় সম্মেলনে উপস্থিত না হওয়ার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে আলাল বলেছিলেন, ‘আমন্ত্রণ জানানো সত্ত্বেও তারা (আ’লীগ) আসেনি। কিন্তু বিএনপি একটি উদার গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। সেই প্রমাণ আওয়ামী লীগের সম্মেলনের দিন আবারও দেবে। আমরা যাব।’

কিন্তু তার এ বক্তব্যের প্রমাণ বাস্তবে মেলেনি। বিএনপির কেউই সম্মেলনে যোগ দেননি।