ভারতের জন্য অভিন্ন দেওয়ানি বিধি ঠিক নয় বলে জানিয়ে দিয়েছে ‘অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ড’। বৃহস্পতিবার দিল্লিতে এক সংবাদ সম্মেলনে মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ডের কর্মকর্তারা এ কথা বলেন।

পার্সোনাল ল’ বোর্ড বলেছে, ‘এ দেশে অনেক সংস্কৃতি রয়েছে যেসবের সম্মান করা উচিত। আমরা সংবিধান প্রণীত অধিকার অনুসারে এ দেশে বাস করি। সংবিধান আমাদের জীবনযাপন করা এবং ধর্ম পালন করার অধিকার দিয়েছে।’

‘মুসলিমরা ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে সমানভাবে অংশ নিয়েছে কিন্তু তাদের অবদানকে সবসময় অবমূল্যায়ন করা হয়’ বলে ল’ বোর্ডের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে।

গত ৭ অক্টোবর কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে তালাক, বহুবিবাহ ইত্যাদি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মুসলিমদের ব্যক্তিগত আইন ও প্রথার বিরোধিতা করে হলফনামা দেয়া হয়।

মুসলিম পার্সোনাল ল’বোর্ডের মহাসচিব মাওলানা ওয়ালি রহমানি কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বলেন, ‘ওরা ইউনিফর্ম সিভিল কোড এনে দেশকে ভাঙার চেষ্টা করছে। তিন তালাক নিয়ে সরকারের বিরোধিতা করা অন্যায়।’ এ প্রসঙ্গে তারা কেন্দ্রীয় ল’ কমিশনকে বয়কট করবেন বলেও জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘ভারতের মতো বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্যের দেশের জন্য ইউনিফর্ম সিভিল কোড কখনোই ভালো নয়। এখানে বিভিন্ন ধর্মের মানুষ বাস করে। সকলেই এক সংবিধান মোতাবেক চলছে। সরকার একে ভাঙতে চাচ্ছে।’

মাওলানা ওয়ালি রহমানি বলেন, যে আমেরিকার কথা এখানে বলা হয় সেখানেও বিভিন্ন রাজ্যে পার্সোনাল ল’ রয়েছে। তাদের আলাদা আলাদা পরিচিতি রয়েছে। কিন্তু সরকার এই বিষয়ে তাদের অনুসরণ করে না।’

তিনি বলেন, ‘এটা শুধু মুসলিমদের বিষয় নয়। মোদিজি এক নয়া যুদ্ধ শুরু করেছেন। তিনি বাইরের সমস্যা হ্যান্ডেল করতে না পেরে এবার দেশের মধ্যে যুদ্ধের প্রস্তুতি শুরু করে আড়াই বছরের ব্যর্থতা চাপা দেয়ার চেষ্টা করছেন। আমরা গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে এ নিয়ে সোচ্চার হব।’

জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ সভাপতি মাওলানা সৈয়েদ আরশাদ মাদানী বলেন, ‘আমরা কেন্দ্রীয় সরকারের ওই প্রচেষ্টার বিরোধিতা করব। এ নিয়ে সমস্ত মুসলিম একসঙ্গে রয়েছেন।’

পার্সোনাল ল’ বোর্ডের সদস্য কামাল ফারুকি বলেন, ‘আমরা সরকারের সঙ্গে সংঘর্ষ চাই না। কিন্তু একতরফাভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া হলে মানুষের প্রতিক্রিয়া হওয়া স্বাভাবিক। আদালতে আমরা বিষয়টি তুলে ধরব এবং আশা করছি সংবিধান অনুযায়ী পার্সোনাল ল’য়ের পক্ষে সিদ্ধান্ত আসবে।’