একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধে ফাঁসি কার্যকর হওয়া মীর কাসেম পরিবারের একটি জাহাজ আটকের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

নাবিক ও ক্রুদের এক কোটি ৪৩ লাখ টাকা বেতন পরিশোধ না করায় ‍‘এমটি ফজলে রাব্বী’ নামের অয়েল ট্যাংকারটি আটকের নির্দেশ দেওয়া হয়।

মীর কাসেমের ছেলে সালমান বিন কাসেম পরিচালিত ‘এডেন লাইন লিমিটেড’র মালিকানাধীন এই জাহাজটি বর্তমানে চট্টগ্রামের ড্রাই ডক জেটিতে নোঙর করা আছে। আদালতের কাগজপত্র হাতে পেলে জাহাজটি আটক করার প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিবে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ।

জানা যায়, নাবিক ও ক্রুদের নিয়মিত বেতন ভাতা পরিশোধ না করায় এমটি ফজলে রাব্বী জাহাজের ক্যাপ্টেন জুয়েল আহাম্মেদ হাইকোর্টের অ্যাডমিরালটি বেঞ্চে একটি মামলা দায়ের করেন গত ১০ অক্টোবর।

আবেদনে জাহাজের ক্যাপ্টেন ক্রুদের এক কোটি ৪৩ লাখ টাকা বেতন ভাতা পরিশোধ না করায় মালিক পক্ষের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়।

বৃহস্পতিবার এই মামলার শুনানি শেষে বেঞ্চের বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী জাহাজটি আটক করার নির্দেশ প্রদান করেন এবং মালিক পক্ষকে আগামী ২১ নভেম্বর আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ প্রদান করেন।

জাহাজের থার্ড ইঞ্জিনিয়ার দেবাশীষ পাল জানান, গত ৮ মাস ধরে নিয়মিত বেতন-ভাতা পরিশোধ না করায় এই জাহাজের ১৮ জন ক্রু ও নাবিকের এক কোটি ৪৩ লাখ টাকা বেতন ভাতা বকেয়া পড়েছে। মালিক পক্ষকে বার বার তাগাদা দেওয়া সত্বেও বেতন ভাতা পরিশোধ করা হচ্ছে না।

এ ছাড়া চট্টগ্রামে অবস্থিত জাহাজের মালিকপক্ষের অফিসটিও দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে। এই অবস্থায় জাহাজের নাবিকরা বেতন ভাতার জন্য আদালতের শরণাপন্ন হয়েছে।