এবার থানায় বসে থাকা অবস্থায়ই হত্যার হুমকি পেলেন রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্রবিরোধী আন্দোলনের নেতা এবং তেল-গ্যাস, খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ। বৃহস্পতিবার রাতে রামপুরা থানার ওসির সামনে বসে থাকা অবস্থায় ‘কুপিয়ে হত্যা করা হবে’ মর্মে হুমকি দিয়ে মোবাইল এসএমএস পান তিনি।

এর পরপরই আনু মুহাম্মদ তার ফেসবুকে লিখেছেন: ‘রামপুরা থানায় বসে জিডি করছিলাম। ওসি (তদন্ত) সাহেব সামনেই ছিলেন। এই সময়েই রাত 8.43 মিনিটে একই নম্বর (01629967551) থেকে আরেকটি এসএমএস পেলাম। হুবহু: “Say ‘yes’ to Rampal, otherwise you must will be hacked to death incredibly by us!” (রামপালকে ‘হ্যাঁ’ বলুন, নইলে আমরা আপনাকে কুপিয়ে হত্যা করব!)।’

আমাদের প্রতিদিন
হুমকির ব্যাপারে আনু মুহাম্মদ লিখেছেন, ‘যারা আতংক তৈরি করতে চায়, মানুষকে নীরব ও নিষ্ক্রিয় করতে চায়, যারা যুক্তিতে হেরে শক্তির পথ ধরে তারা নৈতিকভাবে পরাজিত, তাদের সঠিক জবাব: সবাই মিলে আরও সরব হওয়া, আরও সক্রিয় হওয়া।’

তিনি বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে থানার পুলিশ কর্মকর্তাদের দেখিয়েছেন বলেও জানান।

এর আগে আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের নামে তাকে হুমকি দেওয়া হলে তিনি সাধারণ ডায়েরি করতে থানায় গিয়েছিলেন।

ওই মোবাইল নম্বর (01629967551) থেকে জনপ্রিয় লেখক মইনুল আহসান সাবেরকেও হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। তবে তাকে হুমকি বার্তার শেষে জঙ্গি আইএসআইএস এর নাম লিখেছে হুমকিদাতারা।

হত্যার হুমকি পাওয়ার কথা জানিয়ে সাবের তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আনু মুহাম্মদকে যে নাম্বার থেকে ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়ে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে, সেই একই নাম্বার থেকে আজ সন্ধ্যায় আমার কাছে বার্তা এসেছে, Welcome to our new top list. You will be killed today or tomorrow! — ISIS
আইসিসের কাছে এতটা মূল্যবান হয়ে ওঠার কারণ বুঝতে পারছি না।’
আমাদের প্রতিদিন ডটকম

আনু মুহাম্মদের স্ট্যাটাসে উল্লেখিত নম্বরটিতে ফোন করে সেটি বন্ধ পাওয়া গেছে।

ইমতিয়াজ মাহমুদ নামের একজন সরকারী কর্মকর্তাকেও একই নম্বর থেকে হুমকি দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।