সেঞ্চুরিয়ানে অস্ট্রেলীয় বোলারদের বিপক্ষে দুরন্ত ব্যাট করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি কক। তিনি ১১৩ বলে ১৭৮ রানের দুদর্দান্ত একটি ইনিংস উপহার দিয়েছেন দলকে। এ পারফরম্যান্সের পরে ডি কক মনে করছেন এটাই তার খেলা সবচেয়ে ভালো ইনিংস ছিল।

শুক্রবার সেঞ্চুরিয়ানে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে ম্যাচটিতে প্রোটিয়ারা ৬ উইকেটে জয় তুলে নিয়েছে। আর এই ম্যাচটিতে জয়ের নায়ক ছিলেন ডি কক। তিনি ১৭৮ রানের এক বিধ্বংসী ইনিংস খেলে ৮২ বল হাতে রেখেই দলকে জয় পাইয়ে দিতে সাহায্য করেছেন।
সেঞ্চুরিয়ানের সুপারস্পোর্টস পার্কের পিচটি ব্যাটিং সহায়ক ছিল। আর এ সুযোগটি বেশ ভালোভাবেই কাজে লাগিয়েছেন ডি কক। এদিনের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের ওপর বুলডোজার চালিয়েছেন তিনি। ব্যাটে ঝড় তুলে নিজের ক্যারিয়ারের ১১তম সেঞ্চুরি করেছেন।

এছাড়াও এই ইনিংসটি দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ওয়ানডে ইতিহাসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ স্কোরের মর্যাদাও পেয়েছে। এর আগে সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে গ্যারি কারস্টেন ১৮৮ রান করেছিলেন।
ডি কক ১১৩ বলে ১৭৮ রানের ইনিংসটিতে ১৬টি চার এবং ১১টি ছক্কার মার হাঁকিয়েছেন। পরে স্কট বোল্যান্ডের বলে হেডের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে আউট হন তিনি।

ম্যাচের পর ডি কক সাংবাদিকদের বলেন, ‘এটা আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে অবাধ পারফরম্যান্স ছিল। এর আগেও আমি এমন অনেক পারফরম্যান্স উপভোগ করেছি। তবে সেখানে আমাকে রানের জন্য অনেক বেশি পরিশ্রম করতে হয়েছিল।’
তিনি আরও বলেন, ‘এদিনও আমাকে রানের জন্য পরিশ্রম করতে হয়েছিল। তবে আমি মনে করি এটা শুধু আমারই দিন ছিল। উইকেটটি অনেক ভাল ছিল। যা আমাকে আমার মত করে খেলতে সাহায্য করেছে।’
ম্যাচটিতে প্রথমে ব্যাট করে অস্ট্রেলিয়া ২৯৪ রান করে। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৭৪ রান করেন জর্জ বেইলি। এছাড়া জন হেস্টিংস ৫১ এবং ডেভিড ওর্য়ানার ৪০ রান করেন।

প্রোটিয়াদের হয়ে সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নেন মাত্র দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে নামা অ্যান্ডিল পেহলুকওয়ো। এছাড়া ডেল স্টেইন ২টি ও ওয়েন পারনেল এবং ইমরান তাহির ১টি করে উইকেট নেন।
২৯৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ওপেনিং জুটিতেই ১৪৫ রান তুলে নেয় প্রোটিয়ারা। ডি কক ১৭৮ ও রিলি রুশো ৬৩ রান করেন। ৮২ বল হাতে রেখেই ৬ উইকেটে জয়ের জন্য নির্ধারিত ২৯৫ রান তুলতে সক্ষম হয় দলটি।
অজিদের হয়ে স্কট বোল্যান্ড নিয়েছেন ৩টি উইকেট।