ঢাকার বনানীতে দুই ছাত্রী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি সাফাত আহমেদের বাবা দিলদার আহমেদের দুই ভাই আজাদ আহমেদ ও গোলজার আহমেদের বিরুদ্ধে মুদ্রাপাচার ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের দুই মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে।

রোববার সন্ধ্যায় তাদের বিরুদ্ধে এ পরোয়ানা জারি করেন ঢাকার মহানগর হাকিম নূরুন্নাহার ইয়াসমিন।

দিলদারের সঙ্গে আজাদ ও গোলাজারও আপন জুয়েলার্সের অন্যতম মালিক।

বনানীর হোটেলে বিশ্ববিদ্যালয় দুই ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে গত মে মাসের শুরুতে দিলদারের ছেলে সাফাতের বিরুদ্ধে মামলার পর তার পরিবারের মালিকানাধীন আপন জুয়েলার্সের সোনা চোরাচালানের বিষয়ে তদন্তে নামে শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতর। ওই মাসের শেষ দিকে আপনের ১৫ দশমিক ৩ মণ সোনা এবং ৭ হাজার ৩৬৯টি হীরার অলঙ্কার জব্দ করে জুনে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে পাঠায় শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতর।

শুল্ক ফাঁকি রোধে দায়িত্বরত এই সংস্থার ভাষ্যমতে, মজুদ এসব সোনা-গহনার বৈধতার কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেনি প্রতিষ্ঠানটি।

এর পর অনুসন্ধান শেষে গত ১২ আগস্ট দিলদার ও তার দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে মুদ্রাপাচারসহ বিভিন্ন অভিযোগে রাজধানীর গুলশান, ধানমণ্ডি, রমনা ও উত্তরা থানায় পাঁচটি মামলা করে শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতর।

মুদ্রাপাচার ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মুদ্রাপাচার নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১২ (সংশোধিত ২০১৬) অনুযায়ী, গুলশান থানায় করা দুই মামলায় আজাদ ও গোলজারের বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারি হল।