হিলফুল ফুযুল হেল্পিং ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে গত ২৩ মার্চ বৃহস্পতিবার হাজী আব্দুল আহাদ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ প্রাঙ্গনে ঐতিহ্যবাহী বাঘা ইউনিয়নের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের সংবর্ধিত করা হয়।

সংগঠনের সহ-সভাপতি ফারুক আল মাহমুদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম সাইদুল হাসানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন শরীফ তেলাওয়াত করেন আবু সুফিয়ান। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার বদরুল ইসলাম সুয়েব এবং প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আতাউর রহমান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার বদরুল ইসলাম সুয়েব বলেন, শিক্ষকরা জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ শিক্ষা দানে ব্যয় করে আলোকিত সমাজ গঠনে মাইল ফলক হিসেবে কাজ করেন। অবসরে গেলেও সমাজে তারা অবদান রাখার যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে। সমাজ থেকে অবসর নেয়ার কোন সুযোগ নেই। তিনি গুরুজনদেরকে সম্মান প্রদর্শনের জন্য হিলফুল ফুযুল হেল্পিং ফাউন্ডেশকে ধন্যবাদ জানিয়ে এ থেকে নতুন প্রজন্মক ও শিক্ষার্থীদের শিক্ষা নিতে আহবান জানান।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে সিলেট সরকারি কলেজের প্রিন্সিপাল প্রফেসর আতাউর রহমান বলেন, আজ গোলাপগঞ্জের গর্বিত সন্তানদের জন্য আমরা দেশবাসী গর্ববোধ করি। ত্রিশটি বছর শাহজালালের পূন্যভূমিতে শিক্ষকতার পেশায় দায়িত্ব পালনের সুযোগ পাওয়ায় নিজেকে ধন্য মনে করছি। অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকদের সম্মান জানাতে এ ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করায় আয়োজকদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, হিলফুল ফুযুল হেল্পিং ফাউন্ডেশনের আজকের অনুষ্ঠান প্রশংসনীয়। এভাবে আমরাও যদি শিক্ষিত সুধীজনকে সম্মান জানাতে পারি তবে ইনশাল্লাহ আমাদের চারপাশে শিক্ষিত সমাজ গড়ে উঠবে।

বিশেষ আকর্ষন হিসাবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট কলামিস্ট, সাহিত্যিক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব শাহ মমশাদ। তিনি বলেন, আজকের এই ব্যতিক্রমী আয়োজন প্রমান করে বাঘার সন্তানরাই প্রকৃত টাইগার এবং গোলাপগঞ্জের গোলাপ।  তিনি আরো বলেন, আমাকে দারুল উলুম দেওবন্দ এর লোকেরা প্রশ্ন করত আপনি কি শায়খে বাঘা (রহঃ) এর দেশের লোক? তখন থেকে আমি মনে করতাম বাঘার সন্তানরাই প্রকৃত টাইগার। আজ এই অনুষ্ঠান এসে নিজের চোখেই এর সত্যতা  দেখে গেলাম। তিনি সংগঠনের প্রতিষ্টাতা শেখ ফয়সল মালেক ও সংগঠনের দ্বীর্ঘায়ু কামনা করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর সচিব সাংবাদিক আব্দুল আহাদ, সিলেট জেলা পরিষদের ১০ নং ওয়ার্ডের সদস্য স্যায়িদ আহমদ সুহেদ, সিলেট সরকারি কলেজের প্রভাষক অরবিন্দ কুমার দত্ত, হাজী আব্দুল আহাদ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপাল আব্দুল কুদ্দুস, সালাম মকবুল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কৃপাময় চন্দ্র চন্দ, বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি বাঘা ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদক হায়াত আহমদ, হাজী আব্দুল আহাদ উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ গভরনিং বডির সদস্য ফারুক আহমদ, সমাজসেবী মিষ্টভাষী বক্তা আশরাফ উদ্দিন ফরহাদ, সিনিয়র শিক্ষক আব্দুল বাছিত, শিক্ষিকা আফছানা বেগম, করিম উল্লাহ মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক হিলাল আহমদ, শিক্ষক কুতুব আলী, তরুণ সমাজসেবী জুয়েল আহমদ প্রমুখ।

সংবর্ধিত শিক্ষকদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ফখর উদ্দিন, হারুনুর রশিদ, ফয়জুর রহমান, গিয়াস উদ্দিন ফখর উদ্দিন আব্দুস সুবহান, প্রমুখ। এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন পরগনা বাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি নজরুল ইসলাম কলিম, ফাহিমা ট্রুরিজম এর ডায়রেক্টার মোঃ মুক্তার উদ্দিন, সমাজসেবী লুৎফুর রহমান লুতি, উত্তর বাঘা নুরানিয়া মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা হাফিজ মোঃ লাল মিয়া, চাইল্ড কেয়ার কিন্ডারগার্টেনের প্রতিষ্ঠাতা প্রবীন শিক্ষক আব্দুস সুবহান, মাস্টার আব্দুল হক, মাস্টার নিজাম উদ্দিন, মাস্টার আব্দুল রাজ্জাক, সমাজসেবী নুরুল হক, ডাঃ ইসমাইল হুসেন (মখন), মাষ্টার জাহাঙ্গীর আলম (সুহেল), আব্দুল মুকিত, আহমদুল হাসান (মামুন) শিপু আহমদ, মোঃ রাহি, আবুল মুকিত, মাহমুদ হুসাইন, জামিল আহমদ রায়হান,সেবুল আহমদ,তায়েফ আহমদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে সংগঠনের সভাপতি ও অনুষ্ঠানের পৃষ্টপোষক যুক্তরাজ্য প্রবাসী শেখ ফয়সল মালেক
লন্ডন থেকে ভিডিও কলের মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন। তিনি উপস্থিত সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানান।

সংবাদ প্রেরক : দৈনিক বাঘার ডাক, গোলাপগঞ্জ।