রাসায়নিক অস্ত্র প্রতিরোধে বৈশ্বিক সংস্থা অর্গানাইজেশন ফর দ্য প্রোহিবিশন অব কেমিক্যাল উইপনসের (ওপিসিডব্লিউ) নির্বাহী কাউন্সিলের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ।

সংগঠনটির সদস্য দেশগুলো সর্বসম্মতিক্রমে এই পদে বাংলাদেশকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছে।

বৃহস্পতিবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ৭ মার্চ থেকে ১০ মার্চ নেদারল্যান্ডসের হেগে অনুষ্ঠিত ওপিসিডব্লিউয়ের ৮৪তম অধিবেশনে আগামী এক বছরের জন্য সংস্থাটির নির্বাহী কাউন্সিলের পরবর্তী চেয়ারম্যান নির্বাচন করা হয়। অধিবেশনের তৃতীয় দিনে সর্বসম্মতিক্রমে আগামী এক বছরের জন্য নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে নেদারল্যান্ডে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত শেখ মোহাম্মদ বেলালের নাম ঘোষণা করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, গত ৬ মার্চ ৫৩ সদস্যের একটি আশিয়ান গ্রুপ ওপিসিডব্লিউয়ের চেয়ারম্যান পদে রাষ্ট্রদূত শেখ মোহাম্মদ বেলালের নাম ঘোষণা করে। শেখ মোহাম্মদ বেলাল ৪১ সদস্যের এই নির্বাহী পরিষদে ‘সর্বসম্মতভাবে’ নির্বাচিত হন। তবে এর আগে এশিয়ান গ্রুপের অধীন ৫৩ সদস্যের স্টেট পার্টিতে পাকিস্তানকে হারিয়ে একক প্রার্থী মনোনীত হয় বাংলাদেশ।

রাসায়নিক অস্ত্রনিরোধ সনদ কার্যকর করার লক্ষ্য নিয়ে ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ওপিসিডব্লিউ। পরে এই সংস্থা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে গুরুত্বপূর্ণ মর্যাদার আসন পায়। রাসায়নিক অস্ত্রমুক্ত বিশ্ব গড়ার প্রচেষ্টার স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৩ সালে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার পায় ওপিসিডব্লিউ।

নেদারল্যান্ডসের হেগভিত্তিক সংস্থাটিতে বর্তমানে ১৮৯টি দেশ সদস্য হিসেবে রয়েছে। এই সংস্থা জাতিসংঘের সংস্থা নয়। কিন্তু বিশ্বের যে কোনো দেশে রাসায়নিক অস্ত্রের বিষয়ে পরিদর্শন কিংবা বিশেষজ্ঞ পরামর্শের জন্য ২০০০ সালে ওপিসিডব্লিউয়ের সঙ্গে চুক্তি করে জাতিসংঘ।

২০১৩ সালে নোবেল পুরস্কারজয়ী এই সংগঠনটির চেয়ারম্যান পদে এই প্রথম নির্বাচিত হলো বাংলাদেশ। এর মাধ্যমে বাংলাদেশ রাসায়নিক অস্ত্র প্রতিরোধে ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠিত সংগঠনটির ২০তম চেয়ারম্যান হলো।