বহু বিবাহ প্রথা বাংলাদেশে নতুন কিছু নয়। কিন্তু প্রায় ত্রিশ বার বিয়ের খবর বাংলাদেশেও বিরল। খুলনা জেলার এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে এমনই অভিযোগ করছেন তার একজন স্ত্রী। যার করা এক মামলায় বরগুনার তালতলী থেকে গ্রেফতার হয়েছেন সেই স্বামী।তবে বহু বিবাহের জন্য মামলাটি করেননি স্ত্রী শিউলি আক্তার।

বরগুনার তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অমলেশ চন্দ্র হালদার জানিয়েছেন, যৌতুক নিরোধ আইনে স্বামী ইয়াসিন ব্যাপারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোমবার খুলনার রূপসা এলাকার এই বাসিন্দাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন বরগুনার আদালত।

অন্যদিকে শিউলি আক্তার বলছেন, দু’বছর আগে বিয়ের সময় কিছুই বুঝতে পারিনি। পরে দেখি বাসায় তার আগের ঘরের ছেলে মেয়েরা বেড়াতে আসে। আবার আমাকে যৌতুকের জন্য সে মারধরও করে। প্রতিবাদ করতে থাকলে আমাকে সে এক পর্যায়ে আমার বাবার বাড়িতে রেখে গেছে।’

নিজেকে ২৫ তম স্ত্রী বলে দাবি করা শিউলি আক্তার বলছেন, তাদের পারিবারিকভাবেই বিয়ে হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, সে নিয়মিত নতুন একটা করে বিয়ে করে এটা তার পরিবারও জানতো। আমি নিজেই অন্তত ১৫ জনের খবর যোগাড় করেছি।

ইয়াসিন ব্যাপারীর ছোট ভাই এসকান্দর ব্যাপারী বলছেন, ‘আমি পাঁচ ছয়টা বিয়ের খবর শুনেছি। এতগুলোর কথা জানি না। সে বাড়িতে আসে না। তবে সে নিয়মিতই এরকম করে সেটা জানি। কিছু বলতে গেলেই মারধর করতে আসে।’

তিনি আরো বলছেন, ‘আমি ছোট ভাই হিসেবেতো শাসন করতে পারি না। তবে আমরা চাই সে ভালো হয়ে যাক। জেল সাজা ভোগ করলে যদি কিছু পরিবর্তন হয়।’