ঢাকা কলেজে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ওই কলেজ শাখা ছাত্রলীগের ১৯ নেতা-কর্মীকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এদিকে ওই সংঘর্ষের ঘটনায় রাজধানীর নিউমার্কেট থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা করেছে দুই পক্ষ।

রোববার (২২ জনুয়ারী) ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইনের সই করা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ঢাকা কলেজের ১৯ নেতাকে বহিষ্কারের বিষয়টি জানানো হয়।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ঢাকা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক নূর আলম ভূঁইয়া, যুগ্ম আহ্বায়ক হিরণ ভূঁইয়া, শাহজাহান ভূঁইয়া শামীম, সালেহ আহমেদ (হৃদয়), সামাদ আজাদ জুলফিকার; সদস্য শাহরিয়ার রাশেদ, হাসানুজ্জামান মুন্না, রহমতুল্লাহ, রুবেল মণ্ডল, সাদ্দাম হোসেনকে বহিষ্কার করা হয়েছে। এ ছাড়া সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে ছাত্রলীগের মাহমুদুর রহমান সৈকত, আবদুল আজিজ ফয়েজ, নাইম ইবনে আজাদ, তুহিন, জসিম উদ্দিন, মাইনুল ইসলাম, মিল্টন খন্দকার, রানা ও সুজনকে।

গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ঢাকা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের বিবদমান দুটি পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় এক পক্ষ ফাঁকা গুলিও ছোড়ে। ক্যাম্পাসে থাকা সাতটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেওয়া হয়। প্রতিপক্ষের পিটুনিতে অন্তত তিনজন আহত হয়েছেন। এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক আজ এই বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিল ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটি।

এদিকে নিউমার্কেট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান জানিয়েছেন, রোববার ঢাকা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক নূর আলম ভূঁইয়াসহ ১৯ জনের নামে মামলা করেছেন ওই কলেজের ছাত্র গোপাল দাস। তাঁদের বিরুদ্ধে হত্যার উদ্দেশে হামলার অভিযোগ আনা হয়েছে। এর কিছুক্ষণ পরেই একই অভিযোগে শাহজালাল নামের আরেক জন ছাত্র যুগ্ম আহ্বায়ক হিরণ ভূঁইয়ার পক্ষের ১২ জনের বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা করেন।

এদিকে ক্যাম্পাসের পরিস্থিতির যেন অবনতি না হয়, এ জন্য ঢাকা কলেজে শতাধিক পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।