রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা প্রত্যেকের মধ্যে আলাদা আলাদা। সবার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা এক রকম হয় না। কিন্তু প্রশ্নটা যদি শিশুদের নিয়ে হয়, তবে ভিন্ন কথা। সব শিশুদের মধ্যেই রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকে।
মায়েরা সারাক্ষণ শিশুদের সুস্থ রাখতে, তাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে তৎপর থাকেন। এমন কিছু খাবার আছে, যা শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা খুব তাড়াতাড়ি বাড়িয়ে দেয়।

জেনে নিন সেগুলো কী কী—

বাদাম
প্রত্যেক বাচ্চা বাদাম খেতে ভালোবাসে না। কিন্তু বাদাম তাদের শরীরের জন্য খুবই উপকারী। বাদামে এমন কিছু উপাদান রয়েছে, যা শরীরের অনেক চাহিদা পূরণ করে। রোজকার ডায়েটে আখরোট, পেস্তা, খেজুর, কিশমিশ রাখলে এগুলো শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। তাই শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে অবশ্যই প্রত্যেকদিন বাদাম এবং ড্রাই ফ্রুট খাওয়ান।

ডিম
ব্রেকফাস্ট হোক কিংবা লাঞ্চ বা ডিনার, ডিম খেতে সব বাচ্চাই খুব ভালোবাসে। ডিমে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন, মিনারেল ও প্রোটিন আছে, যা শরীরের অনেক প্রয়োজনীয় চাহিদা পূরণ করে। তাই বাচ্চাদের নিয়মিত ডিম খাওয়ান। সিদ্ধ ডিম, অমলেট, ডিম ভুজিয়া কিংবা বিভিন্ন পদে ডিম খাওয়াতে পারেন।

সবুজ শাক-সবজি
শাক-সবজি খেতে কোনও বাচ্চাই পছন্দ করে না। কিন্তু সবুজ শাক সবজি শিশুদের শরীরের জন্য খুবই প্রয়োজনীয় এবং উপকারী। সবুজ শাক সবজি বাচ্চাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। তাই প্রত্যেক দিনের খাবারের তালিকায় সবুজ শাক-সবজি, পালং শাক, মেথি শাক অবশ্যই রাখবেন।

দই
দইতে একধরণের উপকারী ব্যাকটেরিয়া থাকে, যা শিশুদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। শুধু শিশুদেরই নয়, প্রত্যেকের প্রত্যেকদিন দই খাওয়া দরকার। বাচ্চাদের দইয়ের বিভিন্ন রেসিপি খাওয়ান, তাতে তাদের একঘেয়ে লাগবে না।

ফল
প্রত্যেদিন ফল খাওয়া প্রত্যেকটি মানুষের দরকার। শুধু আপেল, কলা কিংবা লেবু নয়, বাচ্চাদের তরমুজ, ডালিম, পিচ, আঙুর প্রভৃতি ফল খাওয়ানোর অভ্যাস করুন।